এই মাত্র

নাটকীয় ট্রাইব্রেকারে ম্যানইউর কাছে রিয়ালের হার

অপরাজিতই থাকলো হোসে মরিনহোর দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। অন্যদিকে, চ্যাম্পিয়ন্স কাপে নির্ধারিত সময় ১-১ গোলে সমতা থাকায় টাইব্রেকারে ২-১ গোলে হেরে গেছে রিয়াল মাদ্রিদ।

যুক্তরাষ্ট্রের লেভিস স্টেডিয়ামে প্রায় ৬৫ হাজার দর্শকের সামনে মাঠে নেমেছিল রোনালদোবিহীন রিয়াল মাদ্রিদ। তবে প্রতিপক্ষ ইউরোপাজয়ী ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে শুরুতেই পিছিয়ে পড়েছিল রিয়াল। প্রথমার্ধের শেষ মুহূর্তে গোল করে ম্যানইউকে এগিয়ে দেন হেসে লিঙার্ড। তবে ৬৯ মিনিটে পেনাল্টি থেকে রিয়ালকে সমতায় ফেরান কাসেমিরো।

ফলে ১-১ গোলে খেলা শেষ হওয়ায় বিজয়ী নির্ধারণে খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে। এখানেই বিপত্তি ঘটে রিয়াল মাদ্রিদের। অন্যদিকে, ম্যানচেস্টারের জয়ের নায়কে পরিণত হন স্প্যানিশ গোলরক্ষক ডেভিড ডি গিয়া।

টাইব্রেকারে প্রথম শটটা নিতে আসেন অ্যান্থোনি মার্শাল। তবে শটটি পাঠিয়ে দেন গোল পোস্টের বাইরে। এরপর রিয়ালের হয়ে পেনাল্টি নিতে আসেন মাতেও কোভাসিস। এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ লজ ব্লাঙ্কোজদের সামনে। কিন্তু এই সুযোগটা মিস করলেন তিনি।

পরের শট নিতে আসেন ম্যানইউর স্কট ম্যাকটোমিনে। তার শটটিও ঠেকিয়ে দেন রিয়াল গোলরক্ষক। রিয়ালের হয়ে দ্বিতীয় শট নিতে আসেন অস্কার। ডি গিয়া এই শটটিও ফিরিয়ে দেন। ২টি করে শটে কেউ গোল করতে পারেনি। ম্যানইউর হয়ে তৃতীয় শট নিতে আসেন হেনরিখ এমখিতারিয়ান। এইবার আর রক্ষা করতে পারেনি গোলরক্ষক। বল গিয়ে সোজা জড়িয়ে যায় রিয়ালের জালে।

রিয়ালের হয়ে তৃতীয় শট নেন লুইজ মিগুয়েল। তার শটটিও জড়িয়ে যায় ম্যানইউর জালে। ম্যানইউর চতুর্থ শটটিও ফিরিয়ে দেন রিয়াল গোলরক্ষক। রিয়ালের চতুর্থ শটটি নিতে আসেন থিও হার্নান্দেজ। এই শটটিও ঠেকিয়ে দেন ডেভিড ডি গিয়া। ম্যানইউর হয়ে পঞ্চম শটটি নেন ডেলি ব্লিন্ড। তবে এই শটটি আর ঠেকাতে পারেনি রিয়াল। এরপর রিয়ালের হয়ে শেষ শট নিতে আসেন অভিজ্ঞ ফুটবলার কাসেমিরো। কিন্তু তিনিও আর পারেননি।

ফলে ২-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন হোসে মরিনহোর দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

Check Also

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ম্যাচ দেখাবে যেসব চ্যানেল

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ম্যাচ নিয়ে বাড়তি আগ্রহ আছে বাংলাদেশি ভক্তদের। বিশ্বকাপ বাছাই ম্যাচে আগামীকাল ভোরে মেসির আর্জেন্টিনা …

Powered by keepvid themefull earn money